আপনি দক্ষ হলেই,
জিতে যাবে বাংলাদেশ

তাই রেসের ময়দানে পিছিয়ে পড়া মানুষগুলোকে দক্ষ করে সামনে এগিয়ে নিতে

ইন্ডাস্ট্রি ফোকাসড কন্টেন্ট
কয়েক ঘন্টাতেই মেন্টরের বহু বছরের অভিজ্ঞতা
লার্নিং হবে এখন যেকোনো সময়, যেকোনো জায়গায়, যেকোনো বয়সে

ব্রেইনকে ট্রেইন করতে মনের মত কোর্স খুঁজুন

আমাদের পেইড কোর্স গুলো রেসের ময়দানে আপনাকে রাখবে এগিয়ে

কেমন হয় যদি প্রতিটা কোর্সের সাথেই পেয়ে যান ক্যারিয়ার গাইডলাইন?

জ্বী, মেন্টোরিয়ানের যে কোন কোর্সে এনরোল করলেই সাথে পেয়ে যাবেন আরোও তিন তিনটা ক্যারিয়ার গাইডলাইন কোর্স এক্কেবারে ফ্রি!

বেস্ট সেলিং কোর্স গুলো আপনার দক্ষতাকে করবে আরোও পাকাপোক্ত

আমাদের ফ্রি লার্নিং ম্যাটেরিয়াল গুলো হতে পারে আপনার ক্যারিয়ারের জন্য দিক নির্দেশক

আমাদের বইটি পড়ুন, আউট অব দ্যা বক্সে ভাবতে শিখুন


সেল মি দিস পেন

সেলস এর একটা রুলস হলো, " Don't sell the feature, sell the benefit". একজন মানুষ হিসেবে আপনার ফিচার হলো আপনি কথা বলতে পারেন, কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে আপনি কতো ভালো কথা বলতে পারেন। আর এই ভালো বলতে পারা বা না পারার উপরই নির্ভর করবে ভালো সুযোগটা আপনি পাবেন কি পাবেন না?
"সেল মি দিস পেন"  হচ্ছে এমন একটা বই যেখানে শিখানো হয়েছে নিজের পারসোনাল লাইফ,  একাডেমিক লাইফ,  প্রফেশনাল লাইফ,  এবং বিজনেস লাইফ থেকে ফিচার গুলো দূরে সরিয়ে দিয়ে তার জায়গায় কিভাবে বেনেফিট যুক্ত করবেন।

বেনেফিট যুক্ত করতে আমরা শিখবোঃ

  ভারতের সেই মুচির গল্প
  এখানে টাকা ছাড়া ওয়েবসাইট বানানো হয়
  একটি সিভির ময়নাতদন্ত
  বিনা পয়সায় প্রমোশন
  ৫০০ টাকায় নিজের অফিস
  Create your Third identity ইত্যাদি

শেষে বলবো বইটি পড়েন আর নাই পড়েন একটাই অনুরোধ, Please try to be the best version of you.


এখনি সংগ্রহ করুন

A True Mentor Can Change The World

আপনি হ্যাপি তো, আমরাও হ্যাপি

গ্রোথ হ্যাকিং পার্টনার

Team Mentorian

একটা স্বপ্ন ! "দক্ষ বাংলাদেশের খোঁজে" এই মুলমন্ত্র নিয়েই শুরু Mentorian এর গল্প।

এই গল্পে রয়েছে কয়েকজন সুপারহিরো যাদের সাথে নিয়ে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে মেন্টরিয়ান। সুপারহিরোদের সুপার ফাস্ট মস্তিষ্কে কিলবিল করে হাজারো প্লান।সেই সুপার হিরোদের গল্পের সুপার ম্যান, রাসেল এ কাউসার, সবার আদর্শ, টিমের সবার জন্য সুপারহিরো। সাথে আছে ব্যাটম্যান শেহজাদ ওমর, সে হচ্ছে পাওয়ারফুল সুপারহিরো যে কিনা সব কিছুর মাঝে ভুল গুলো চিহ্নিত করে সবাই কে শুধরে দেয়। সাথে আছে থর রূপী মেহেদি হাসান রিফাত, সকলের জন্য স্যাভিয়ার।

আছে মোহাম্মদ নয়ন, দ্য আয়রনম্যান। যে টেকনিক্যালি নলেজড এবং নিজেই নিজের শক্তি। রয়েছে চঞ্চল ফ্ল্যাশরুপি সুপারহিরো শাকিল বিশ্বাস যে তড়িৎ গতিতে কাজ করে ফেলতে পারে। এবার গল্প বলবো শক্তিশালী সুপারহিরো হাল্ক, পারভেজ হোসেনের। যে তার মিটমিটে হাসি আর কাজের উপরে কাজ এই দুইয়ের সমন্বয়ে টিম কে মাতিয়ে রাখে।

আমাদের দ্য ব্ল্যাক উইডো – স্ট্রিক্ট লিডার, সাজিয়া জাহান সিনহা, হাল না ছাড়া শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়া যোদ্ধা। আছে ক্যাপ্টেন মার্বেলরূপী সুমাইয়া জামান মিম, সে পুরো টিমকে সুষ্ঠুভাবে কন্ট্রোল করতে উগ্রীব থাকে। সামিনা তাসনিম, স্কারলেট উইচ, না চাইতেই যে বৃষ্টির মতো কাজ হয়ে ঝরে পড়ে। শুভ সাইমন দ্য স্পাইডারম্যান, টিমের সবার ছোট তবে প্রিয় সুপারহিরো।

সুপারহিরো আসিফ উল ইসলাম, ক্যাপ্টেন আমেরিকা, মেন্টরিয়ান এর ইঞ্জিন। স্ট্রংগেস্ট লিডার" If "প্যারা নাই চিল" had a face. সুপারহিরো রুম্মন বক্সী,ফ্যালকন, দায়িত্ববান একজন মানুষ। সবসময় দায়িত্ব সুষ্ঠু ভাবে পালন করে।

সাবরিন জান্নাত সুমি, দ্য নেবুলা, একজন শান্ত সুপারহিরো তবে সবার বন্ধু। কাজের ব্যাপারে কঠোর। সায়মা সুলতানা, ডাস্ট, দায়িত্বশীল এবং শান্ত একজন মানুষ। মিরাজ আহমেদ, dr. Strange, সে একটা সাইলেন্ট কিলার। দেখা নাই সাক্ষাত নাই, কিন্তু কাজ পেলেই তার আর ঘুম নাই।

সবাই একটা পরিবারের মতো কাজ করে যাচ্ছে প্রতিদিন এবং আজও। তবে সবাইকে এই এক বন্ধনে যুক্ত রেখেছে একটা ই নাম, "মেন্টরিয়ান"।